ফজর নামাজ পড়ার নিয়ম, কিভাবে ফজরের নামাজ পড়বেন | Fajr Namaz Porar Niom Bangla – Full

ফজর নামাজ পড়ার নিয়ম, কিভাবে ফজরের নামাজ পড়বেন? ফজরের মোট ৪ রাকাত, যার মধ্যে প্রথম ২ রাকাত সুন্নতে মুয়াক্কাদা ও পরের ২ রাকাত ফরজ। এখন আমরা প্রথম ২ রাকাত সুন্নত কিভাবে পড়তে হবে তা বিস্তারিত ভাবে দেখিয়ে দিচ্ছিঃ

প্রথম ২ রাকাত সুন্নত নামাজ পড়ার নিয়মঃ

১। প্রথমে অজু করে বা পাক-পবিত্র হয়ে জায়-নামাজে দাড়াতে হবে। অতঃপর জায়নামাজের দোয়া পরতে হবে – ইন্নি উয়াজ্জাহতু উয়াজহিয়া লিল্লাজি ফাতারা সসামাওয়াতি উয়াল আরদ্বি হানিফা উয়ামা আনা মিনাল মুশরিকিন।

২। নিয়তঃ আসলে নিয়ত মানে নামাজ পড়ার ইচ্ছা পোষন করা। নিয়তের দোয়া পড়া জরুরী নয়, তবে আল্লাহুআকবার বলা জরুরী। তবে আমাদের দেশে প্রায় সকলেই পড়ে থাকেন – নাওয়াইতু আন উসাল্লিয়া লিল্লাহিতায়ালা রাকাতাই সালাতি ফাজরি সুন্নাতু রাসুলিল্লাহি তায়ালা মুতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল ক্বাবাতিশ শারিফাতি আল্লাহু আকবার। এই বলে দুই হাত কাধ বরাবর নিতে হবে যাতে হাতের তালু দুইটি কাবার দিকে থাকে।

ফজর নামাজ পড়ার নিয়ম, কিভাবে ফজরের নামাজ পড়বেন | Fajr Namaz Porar Niom Bangla - Full
ফজর নামাজ পড়ার নিয়ম, কিভাবে ফজরের নামাজ পড়বেন | Fajr Namaz Porar Niom Bangla – Full

 

৩। তারপর হাত নামিয়ে নাভির নিচে অথবা নাভির উপরে বাধতে হবে। অতঃপর ছানা পড়তে হবে। অর্থাৎ সুবাহানাকা আল্লাহুমা ওয়া বিহামদিকা ওয়াতাবারা কাসমুকা ওয়া তায়ালাজাদ্দুকা ওয়া লা-ইলাহা গাইরুকা।

৪। নিচের দিকে দৃষ্টি অবনমিত রেখে তারপর সুরা ফাতিহা পড়তে হবে।

সূরা ফাতিহা:

আউজুবিল্লাহি মিনাশ শায়তানির রাজিম।

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

আররাহমানির রাহিম,মা-লিকিয়াউ মিদ্দিন,

ইয়া কানা’ বুদু উয়া ইয়া কানাসতায়িন,

ইহদিনাসসিরাতাল মুস্তাকিম,

সিইরা ত্বাল্লাজিনা আন আম তায়ালাইহিম,

ঘাইরিল মাগদু বিয়ালাইহিম,

উয়ালাদ্দুয়াল্লিন। “আমিন” । এর পর যে কোন একটি সূরা পড়তে হবে, তবে ফজরের বেলায় সূরা কাফিরুন পড়া উত্তম।

সূরা কাফিরুন:

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

কুল ইয়াআইয়ুহাল কা-ফিরূন।
লাআ‘বুদুমা-তা‘বুদূন।
ওয়ালাআনতুম ‘আ-বিদূনা মাআ‘বুদ।
ওয়ালাআনা ‘আ-বিদুম মা-‘আবাত্তুম,
ওয়ালাআনতুম ‘আ-বিদূনা মাআ‘বুদ।
লাকুম দীনুকুম ওয়ালিয়া দীন।

৫। তারপর আল্লাহু আকবার বলে রুকুতে যেতে হবে। রুকুতে গিয়ে পড়তে হবে – সুবহানা রাব্বিয়াল আযিম (৩,৫,৭ বার এবং বেশি পড়লে ভাল।

সামিয়াল্লাহুলিমান হামিদা বলে রুকু থেকে উঠতে হবে। সোজা হয়ে দাড়াতে হবে। অতঃপর বলতে হবে আল্লাহুম্মা রাব্বানা লাকাল হামদ।

৬। তারপর আবার আল্লহু আকবার বলে সিজদায় যেতে হবে। সিজদার নিয়ম: প্রথমে পায়ের পাতা থেকে কোমর পর্যন্ত সোজা রেখে দেহটাকে নিচের দিকে ঝুকিয়ে পরবর্তিতে হাটু ঝুকিয়ে প্রথমে নাক পরে কপাল মাটিতে লাগানো।

সিজদায় গিয়ে পড়তে হবে – সুবহানা রাব্বিয়াল আলা,  (ঠিক আগের মতো ৩,৫,৭ বার এবং বেশি পড়লে ভালো)। অতঃপর আল্লাহু আকবার বলে সিজদাহ থেকে বসা। আবার আল্লাহু আকবার বলে সিজদায় যেতে হবে। এবং আগের মতোই বলতে হবে – সুবহানা রাব্বিয়াল আলা। এখানেই প্রথম রাকাত শেষ হলো।

৭। এবার আল্লাহুআকবার বলে আবার দ্বিতীয় রাকাতে দাড়াতে হবে। আবার ঠিক আগের মতোই সূরা ফাতিহা এবং তার সাথে মিলিয়ে যে কোন একটি সুরা পড়তে হবে। তবে ফজরের নামাজের ক্ষেত্রে সূরা আল্-ইখলাস পাঠ করা উত্তম।

সুরা ইখলাসঃ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।

কুল হুওয়াল্লা-হু আহাদ।

আল্লা-হুসসামাদ।

লাম ইয়ালিদ ওয়ালাম ইঊলাদ।

ওয়া লাম ইয়াকুল্লাহূকুফুওয়ান আহাদ।

তার পর আল্লাহু আকবার বলে রুকুতে যেতে হবে এবং রুকুতে গিয়ে – সুবহানা রাব্বিয়াল আযিম (৩,৫,৭ বার এবং বেশি পড়লে ভাল) পড়তে হবে। তারপর সামিয়াল্লাহুলিমান হামিদা বলে সোজা হয়ে দাড়াতে হবে। অতঃপর বলতে হবে আল্লাহুম্মা রাব্বানা লাকাল হামদ। আল্লাহু আকবার বলে সিজদায় যেতে হবে।
ফজর নামাজ পড়ার নিয়ম, কিভাবে ফজরের নামাজ পড়বেন | Fajr Namaz Porar Niom Bangla - Full
ফজর নামাজ পড়ার নিয়ম, কিভাবে ফজরের নামাজ পড়বেন | Fajr Namaz Porar Niom Bangla – Full

 

সিজদায় গিয়ে ঠিক আগের মতোই – সুবহানা রাব্বিয়াল আলা ৩,৫,৭ বার পড়তে হবে। তারপর আল্লাহু আকবার বলে বসতে হবে। অতঃপর আবার আল্লাহু আকবার বলে সেজদায় যেতে হবে এবং বলতে হবে সুবহানা রাব্বিয়াল আলা (৩,৫,৭ বার)। তারপর আল্লাহু আকবার বলে বসতে হবে।

 

৮। এখন বসে তাশাহহুদ পড়তে হবে – আত্তাহিয়াতু লিল্লাহি উয়াসসালাউয়াতু উয়াত্তাইয়িবাতি আসসালামু আলাইকা আইয়ু হান্নাবিয়ু উউয়া রাহমাতুল্লাহি উয়া বারাকাতুহু আসসালামু আলাইনা আলা ইবাদিল্লাহিস সুয়ালিহিন, আসহাদু আল্লাহ ইলাহা ইল্লাল্লাহু উয়া আসহাদু আন্না মুহাম্মাদান আবদু হুয়া রাসুলুহু।

তবে আসহাদু আল্লাহ ইলাহা বলার সময় শাহাদাত আঙ্গুলি উপরের দিকে উঠাতে হবে। তারপর দরুদ শরীফ পাঠ করতে হবে – আল্লাহুম্মা সাল্লিয়ালা মুহাম্মাদিউ উয়ালা আলি মুহাম্মাদ কামা সাল্লাইতা আলা ইব্রাহিমা উয়ালা আলি ইব্রাহিম ইন্নাকা হামিদুম্মাজিদ। আল্লাহুম্ম বারিক আলা মুহাম্মাদিউ উয়ালা আলি মুহাম্মাদ কামা বারাক তা আলা ইব্রাহিমা উয়ালা আলি ইব্রাহিম ইন্নাকা হামিদুম্মাজিদ।

তারপর দোয়া মাসুরা পড়তে হয়। আল্লাহুম্মা ইন্নি জালামতু নাফসি জুলমান কাছিরা উয়ালা ইয়াগফিরু জুনুবা ইল্লা আনতা ফাগফিরিলি মাগফিরাতাম মিন হিমদিকা উয়ার হামনি ইন্নাকা আনতাল গাফুরুররাহিম।

তারপর সালাম ফিরাতে হবে। প্রথমে আসসালামুয়ালাইকুম উয়া রাহমাতুল্লাহ বলে ডান দিকে এবং পরে আসসালামুয়ালাইকুম উয়া রাহমাতুল্লাহ বলে বাম দিকে মস্তক ঘুরাতে হবে । এখানেই দুই রাকাত সুনাতে মুয়াক্কাদা শেষ হলো। এবার কয়েকবার আসতাগফিরুল্লাগ, আল্লাহুআকবার, সুবহান্নাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি সুবহান্নাহিল আযিম বলা মুস্তাহাব আমল। এখন দুই রাকাত ফরজ নামাজ কিভাবে আদায় করতে হবে তা দিখিয়ে দিচ্ছি।

দুই রাকাত ফরজ নামাজের নিয়মঃ

২ রাকাত সুন্নত এর মতই ফরজ ২ রাকাত পড়তে হয়। নিয়ম প্রায় একই , কিছু পার্থক্য নিয়ত পড়ার মধ্যে আছে। আবার সুন্নাতের বেলায় আমরা ছোট ছোট ‍সূরা দিয়ে নামাজ আদায় করেছি। কিন্ত ফরজের বেলায় বড় বড় সূরা দিয়ে পড়ার উত্তম। আর পুরুষের বেলায় সুন্নাত নামাজ ঘরে পড়া ভাল, কিন্তু ফরজ নামাজ ইমাম সাহেবের পেছনে দাড়িয়ে জামায়াতের সহিত আদায় করা জরুরী। এতে সওয়াব ও ঘরে পড়ার ২৭ গুণ বেশী পাওয়া যায়। তবে মহিলাদের বেলায় উভয় নামাজই ঘরে পড়া জায়েজ। এই মাসালাগুলি জানা থাকা ভাল। এবার আশুন কিভাবে ফরজ ২ রাকাত আদায় করতে হবে তা দেখিয়ে দিই।

১। প্রথমে অজু করে জায়নামাজে দাড়াতে হবে। অতঃপর জায়নামাজের দোয়া পড়তে হবে – ইন্নি উয়াজ্জাহতু উয়াজহিয়া লিল্লাজি ফাতারাসসামাওয়াতি উয়াল আরদ্বি হানিফা উয়ামা আনা মিনাল মুশরিকিন।

তার পর নিয়ত করতে হব – নাওয়াইতু আন উসাল্লিয়া লিল্লাহিতায়ালা রাকাতাই সালাতি ফাজরি, ফারদুল্লাহি তায়ালা (ইমামের পিছনে পড়লে’ বলতে হবে – ইকতা দাইতু বিহাজাল ইমাম, আর নিজেই ইমামতি করলে বলতে হবে, আনা ইমামু লিমান হাদ্বারা উয়ামাইন ইয়াহদুরু) মুতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল ক্বাবাতিশ শারিফাতি আল্লাহু আকবার।

২। আল্লাহুআকবার বলার সময় দুই হাত কাধ বরাবর নিতে হবে যাতে হাতের তালু দুইটি কাবার দিকে থাকে, তার পর হাত নামিয়ে নাভির নিচে অথবা নাভির উপরে বাধতে হবে। তারপর ছানা পড়তে হবে – সুবাহানাকা আল্লাহুমা ওয়া বিহামদিকা ওয়াতাবারা কাসমুকা ওয়া তায়ালাজাদ্দুকা ওয়া লা-ইলাহা গাইরুকা।

৩। নিচের দিকে দৃষ্টি অবনমিত রেখে তারপর সুরা ফাতিহা পড়তে হবে।

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম আলহামদু লিল্লাহি রাব্বিল আলামিন, আররাহমানির রাহিম,মা-লিকিয়াউ মিদ্দিন, ইয়া কানা’ বুদু উয়া ইয়া কানাসতায়িন, ইহদিনাসসিরাতাল মুস্তাকিম, সইরা ত্বাল্লাজিনা আন আম তায়ালাইহিম, ঘাইরিল মাগদু বিয়ালাইহিম, উয়ালাদ্দুয়াল্লিন। আমিন। এরপর যে কোন একটি সূরা পড়তে হবে। আমরা এখানে সূরা দুহা পাঠ করেছি।

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

১) ওয়াদদু হা।
২) ওয়াল্লাইলি ইযা-ছাজা।
৩) মা-ওয়াদ্দা‘আকা রাব্বুকা ওয়ামা-কালা।
৪) ওয়ালাল আ-খিরাতুখাইরুল্লাকা মিনাল ঊলা।
৫) ওয়া লাছাওফা ইউ‘তীকা রাব্বুকা ফাতারদা।
৬) আলাম ইয়াজিদকা ইয়াতীমান ফাআ-ওয়া।
৭) ওয়া ওয়াজাদাকা দাল্লান ফাহাদা।
৮) ওয়া ওয়াজাদাকা ‘আইলান ফাআগনা।
৯) ফাআম্মাল ইয়াতীমা ফালা-তাকহার।
১০) ওয়া আম্মাছ ছাইলা ফালা-তানহার।
১১) ওয়া আম্মা-বিনি‘মাতি রাব্বিকা ফাহাদ্দিছ।

৪। তারপর আল্লাহু আকবার বলে রুকুতে যেতে হবে। রুকুতে গিয়ে পড়তে হবে – সুবহানা রাব্বিয়াল আযিম (৩,৫,৭ বার এবং বেশি পড়লে ভাল)। তারপর সামিয়াল্লাহুলিমান হামিদা বলে রুকু থেকে উঠতে হবে। অতঃপর দাড়িয়ে বলতে হবে আল্লাহুম্মা রাব্বানা লাকাল হামদ।

৫। আবার আল্লহু আকবার বলে সিজদায় যেতে হবে। সিজদায় গিয়ে পড়তে হবে – সুবহানা রাব্বিয়াল আলা, ঠিক আগের মতো, ৩,৫,৭ বার এবং বেশি পড়লে ভাল। আল্লাহু আকবার বলে সিজদাহ থেকে বসা এবং তার পর আবার আল্লাহু আকবার বলে সিজদায় যেতে হবে এবং বলতে হবে সুবহানা রাব্বিয়াল আলা ৩,৫,৭ বার।

 

আর সিজদার নিয়ম হচ্চে: প্রথমে পায়ের পাতা থেকে কোমর পর্যন্ত সোজা রেখে দেহটাকে নিচের দিকে ঝুকিয়ে পরবর্তিতে হাটু ঝুকিয়ে প্রথমে নাক পরে কপাল মাটিতে লাগানো।

৬। তারপর আল্লাহু আকবার বলে দাড়িয়ে যেতে হবে। প্রথমে সূরা ফাতিহা পাঠ করে অন্য একটি সূরা পাঠ করতে হবে।

আমরা এখানে সূরা আল ইনশিরাহ পাঠ করেছি।

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

আলাম নাশরাহলাকা সাদরাক।

ওয়া ওয়াদা‘না-‘আনকা বিঝরাক

আল্লাযীআনকাদা জাহরাক।

ওয়া রাফা‘না-লাকা যিকরাক।

ফাইন্না মা‘আল ‘উছরি ইউছরা।

ইন্না মা‘আল ‘উছরি ইউছরা।

ফাইযা-ফারাগতা ফানসাব।

ওয়া ইলা- রাব্বিকা ফারগাব।

তারপর আল্লাহু আকবার বলে রুকুতে গিয়ে – সুবহানা রাব্বিয়াল আযিম ৩,৫,৭ বার পড়তে হবে। তারপর সামিয়াল্লাহুলিমান হামিদা বলে দাড়াতে হবে। দাড়িয়ে বলতে হবে – আল্লাহুম্মা রাব্বানা লাকাল হামদ।

এরপর আল্লাহু আকবার বলে সিজদায় যেতে হবে। সিজদায় গিয়ে ঠিক আগের মতোই পড়তে হবে – সুবহানা রাব্বিয়াল আলা ৩,৫,৭ বার। তারপর আল্লাহু আকবার বলে বসতে হবে। আবার আল্লাহু আকবার বলে সিজদায় গিয়ে পড়তে হবে – সুবহানা রাব্বিয়াল আলা ৩,৫,৭ বার। আবার আল্লাহু আকবার বলে বসতে হবে।

ফজর নামাজ পড়ার নিয়ম, কিভাবে ফজরের নামাজ পড়বেন | Fajr Namaz Porar Niom Bangla - Full
ফজর নামাজ পড়ার নিয়ম, কিভাবে ফজরের নামাজ পড়বেন | Fajr Namaz Porar Niom Bangla – Full

 

৭। এবার বসে তাশাহুদ পড়তে হবে।

আত্তাহিয়াতু লিল্লাহি উয়াসসালাউয়াতু উয়াত্তাইয়িবাতি আসসালামু আলাইকা আইয়ু হান্নাবিয়ু উউয়া রাহমাতুল্লাহি উয়া বারাকাতুহু আসসালামু আলাইনা আলা ইবাদিল্লাহিস সুয়ালিহিন, আসহাদু আল্লাহ ইলাহা ইল্লাল্লাহু উয়া আসহাদু আন্না মুহাম্মাদান আবদু হুয়া রাসুলুহু ।

আসহাদু আল্লাহ ইলাহা বলার সময় শাহাদাত আঙ্গুলি উপরের দিকে উঠাতে হবে। তারপর দরুদ পড়তে হবে –  আল্লাহুম্মা সাল্লিয়ালা মুহাম্মাদিউ উয়ালা আলি মুহাম্মাদ কামা সাল্লাইতা আলা ইব্রাহিমা উয়ালা আলি ইব্রাহিম ইন্নাকা হামিদুম্মাজিদ। আল্লাহুম্ম বারিক আলা মুহাম্মাদিউ উয়ালা আলি মুহাম্মাদ কামা বারাক তা আলা ইব্রাহিমা উয়ালা আলি ইব্রাহিম ইন্নাকা হামিদুম্মাজিদ।

দোয় মাসুরা: আল্লাহুম্মা ইন্নি জালামতু নাফসি জুলমান কাছিরা উয়ালা ইয়াগফিরু জুনুবা ইল্লা আনতা ফাগফিরিলি মাগফিরাতাম মিন হিমদিকা উয়ার হামনি ইন্নাকা আনতাল গাফুরুররাহিম।

প্রথমে আসসালামুয়ালাইকুম উয়া রাহমাতুল্লাহ বলে ডান দিকে সালাম ফিরাতে হবে। পরে আসসালামুয়ালাইকুম উয়া রাহমাতুল্লাহ বলে বাম দিকে মস্তক ঘুরাতে হবে ।

এবার কয়েকবার আসতাগফিরুল্লাগ, আল্লাহুআকবার, সুবহান্নাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি সুবহান্নাহিল আযিম বলা মুস্তাহাব আমল। তারপর মোনাজাতের দোয়া পাঠ করুন।

ফজর নামাজ পড়ার নিয়ম, কিভাবে ফজরের নামাজ পড়বেন | Fajr Namaz Porar Niom Bangla - Full
ফজর নামাজ পড়ার নিয়ম, কিভাবে ফজরের নামাজ পড়বেন | Fajr Namaz Porar Niom Bangla – Full

৮। মোনাজাতের দোয়াঃ

রব্বানা জলামনা আনফুসিনা অ-ইল লাম তাগফির লানা অতারহামনা লানা কুনাননা মিনাল-খসিরীন।

রাব্বানা আতিনা ফিদদুনয়া হাসনাতাও অফিল আখিরতি হাসনাতাও অকিনা আ’যাবান নার।

আল্লাহুম্মা আনতাস সালাম ওয়া মিনকাস সালাম তাবারকতা ইয়া জালজালালি ওয়াল ইকরাম।

‘রাব্বির হামহুমা কামা রাব্বাইয়ানি সাগিরা। বিরাহমাতিকা ইয়া আরহামার রাহিমিন। এভাবেই এবং এখানেই ফজরের ৪ রাকাত নামাজ শেষ হলো। আপনাদের কেমন লাগলো জানাবেন। সবাইকে ধন্যবাদ। আস্সালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ।

Watch this video to easily understand how to perform salat al-fajr:

Reference:

https://islamicstorybangla.com/কিভাবে-ফজরের-নামাজ-পড়বেন/

 

(Visited 73 times, 1 visits today)

Leave a Comment